বৃহস্পতিবার,

০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩,

২০ মাঘ ১৪২৯

বৃহস্পতিবার,

০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩,

২০ মাঘ ১৪২৯

Radio Today News
bangas biscuit

নবীজি (সাঃ) এর বিশেষ কিছু গুণসমূহ

রেডিও টুডে রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১:৪১, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

আপডেট: ১২:১৯, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

নবীজি (সাঃ) এর বিশেষ কিছু গুণসমূহ

সংগৃহীত ছবি

কুরআনুল কারীমের ঘোষণায় আমরা সকলেই নবীজি (সাঃ) এর উম্মত।  নবীজি বিশ্ববাসীর জন্য অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় আদর্শ। আল্লাহর বান্দা হিসেবে আমাদের সকলেরই নবীজির আদর্শ গুলো নিজেদের চারিত্রিক গুণাবলীতে অনুসরণ এবং অনুকরণ একান্ত আবশ্যক। আমরা অনেকেই আছি যারা বিশ্ব নবীর অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় গুণগুলো সম্পর্কে অজ্ঞাত।

চলুন তাহলে দেরি না করে জেনে আসি নবীজি (সাঃ ) এর কিছু বিশেষ চারিত্রিক গুণাবলী সম্পর্কে  যা তিনি দৈনন্দিন জীবনে অনুসরণ করে চলতেন :

​​​​​১. দিনের বেশিরভাগ সময়ে আমাদের নবীজি নীরব থাকতেন।
২. কোন কাজ করার ক্ষেত্রে কিংবা কারো সঙ্গে কোন কথা বলার ক্ষেত্রে এমনকি লেনদেনের ক্ষেত্রে তিনি কখনোই কঠোরতা অবলম্বন করতেন না।
৩. কখনো কারো সাথে কথা বলার ক্ষেত্রে তিনি অযথা তর্ক-বিতর্ক সৃষ্টি করতেন না।

৪. খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে তিনি ছিলেন বিশেষ যত্নবান। কোন খাদ্যদ্রব্যের দোষ কখনোই তিনি ধরতেন না।

৫. আমাদের বিশ্বনবীর গুন গুলোর মধ্যে সর্ব শ্রেষ্ঠ গুন ছিল ধৈর্য ধারণ করা। তিনি সবসময় বা সর্বদা ধৈর্য ধারণ করতে ভালবাসতেন।

৬. মহান রাব্বুল আলামিনের প্রত্যেকটি নিয়ামতকে তিনি সম্মান জানাতেন।

৭. নবীজির দরবারে যদি কোন ব্যক্তি আগত হতেন তবে তিনি তাকে কখনোই অবহেলা করতেন না।

৮. বিনা প্রয়োজনে কথা বলা তিনি একদমই পছন্দ করতেন না। তাদের প্রয়োজনমতো কিংবা কাউকে বোঝানোর ক্ষেত্রে তিনি যতটুকু কথা বলা প্রয়োজন ততটুকুই বলতেন।

৯. কোন মজলিসে বক্তা যতক্ষণ না তার বক্তব্য শেষ করতেন তিনি শেষ পর্যন্ত না শুনে সেখান থেকে উঠতেন না।

১০. ইসলামের পরিপন্থী যাবতীয় কথা যেখানে হতো সেখান থেকে তিনি বিরত থাকতেন।

১১. অপরাধীকে ক্ষমা করা তিনি পছন্দ করতেন।

১২. তিনি বিশ্বনবী হওয়া সত্বেও খুবই সাদাসিদে ভাবে জীবন যাপন করতে ভালোবাসতেন।

১৩. তিনি কথা বলার সময় নম্রতা এবং বিনয় ভাব প্রকাশ করতেন।

১৪. সর্বোপরি তিনি সবসময় মহান রব্বুল আলামীনের ভয়ে ভীত থাকতেন।

আমাদের বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ছিলেন সকল গুণের গুণাবলীতে শ্রেষ্ঠতম। তিনি এত গুণে গুণান্বিত ছিলেন যে লিখে শেষ করা যাবে না। নবীজির উম্মত হিসেবে মানবজাতির উচিত তার সকল আদর্শ সমূহ নিজেদের জীবনে অনুসরণ করা।

মহান রাব্বুল আলামিন বিশ্বের সকল মুসলিম উম্মাহকে  নবীজি(সাঃ) এর সকল চারিত্রিক গুনাবলি অন্তরে ও মানব জীবনে অনুসরণ ও অনুকরণ করার তাওফিক দান করুন।
(আমিন )

এস আর

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের