রোববার,

১৬ মে ২০২১

দাঁতের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া উপায়

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৮:৫৮, ২৮ ডিসেম্বর ২০২০

আপডেট: ১০:২১, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১

দাঁতের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া উপায়

ছবি : সংগৃহীত

প্রবাদ আছে দাঁত থাকতে কেউ দাঁতের মর্ম বুঝে না। কিন্তু সবারই উচিত দাঁত থাকতে এর যত্ন নেওয়া। অনেকেই দাঁতকে অবহেলা করেন, যার ফল হাতেনাতে পান অনেকে।

দাঁতের সমস্যার কোনো বয়স নেই। পাঁচ বছরের শিশুরও দাঁতের সমস্যা হতে পারে, আবার ৫০ বছরের ব্যক্তিও দাঁতের যন্ত্রণায় ভুগতে পারেন। দাঁতের যন্ত্রণা কতটা কষ্টকর সেটা যার হয় সেই বোঝে। তাই দাঁতের ব্যথা দূর করতে জেনে নিন ঘরোয়া কিছু উপায়।

১. লবণ গরম পানিতে কুলকুচি

দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার প্রথম উপায় হলো, লবণ গরম পানিতে কুলকুচি। লবণ পানি হলো প্রাকৃতিক জীবাণুনাশক, যা দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাদ্য বা ময়লা দূর করতে সহায়ক। এছাড়া, দাঁতের ব্যথা কমানোর পাশাপাশি দাঁতের ক্ষত-ও সারিয়ে তুলতেও যথেষ্ট সাহায্য করে এটি। এক গ্লাস গরম পানিতে আধ চা চামচ লবণ মেশান এবং সেই পানি দিয়ে কুলকুচি করুন।

২. রসুন

রসুন ঘরোয়া অ্যান্টিবায়োটিক, প্রাচীন কাল থেকেই শরীরের বিভিন্ন সমস্যায় রসুনের ব্যবহার হয়ে আসছে। রসুন দাঁতে তৈরি হওয়া ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়াকে মারে, ব্যথা উপশমেও সহায়ক। একটা-দুটো রসুনের কোয়া নিয়ে থেঁতলে নিন, তার সঙ্গে সামান্য নুন মিশিয়ে যন্ত্রণার জায়গায় লাগান। রসুন চিবিয়েও খেতে পারেন। যন্ত্রণা কম না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন লাগাতে পারেন।

৩. অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরায় থাকে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান, যা দাঁতের জীবাণুকে নষ্ট করে দেয়। দাঁতে থাকা জীবাণুই দাঁতের সব সমস্যার কারণ। অ্যালোভেরা জেল নিয়ে যন্ত্রণার জায়গায় লাগাতে পারেন।

৪. লবঙ্গ

দাঁতের ব্যথার উপশমে আয়ুর্বেদে দীর্ঘকাল ধরেই লবঙ্গের ব্যবহার হয়ে আসছে। লবঙ্গ তেল দাঁতের ব্যথার উপশমে খুব কার্যকরি। দাঁতের ব্যাথার কারণে মাড়িতে যে ব্যাথা হয় সেটাও কম করে লবঙ্গ। দু-তিন ফোঁটা লবঙ্গের তেলের সঙ্গে আধ চা চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন। তারপর তুলোয় করে যন্ত্রণার জায়গায় লাগান। কিছুক্ষণ রাখার পর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। দু-তিন সপ্তাহ দিনে একবার করে ব্যবহার করলেই ফল পাবেন।

৫. বরফের সেঁক

যেকোনো যন্ত্রণা কমাতে বরফের সেঁক দিয়ে থাকি আমরা। দাঁতের যন্ত্রণাতেও ভালো কাজ হয় বরফের সেঁক দিলে। বরফের সেঁক দিলে নার্ভগুলি অবশ হয়ে পড়ে। মাড়ি ফোলা এবং প্রদাহকে কম করতে সাহায্য করে ঠাণ্ডা। কাপড়ে মুড়ে বরফের কিউব ব্যথা জায়গায় কিছুক্ষণ চেপে রাখুন। ভালো উপকার হবে।

৬. পেয়ারা পাতা

পেয়ারা পাতায় থাকে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য, যা যন্ত্রণা কমাতে সাহায্য করে। চিবিয়ে খেতে পারেন বা পানিতে কয়েকটা পেয়ারা পাতা ফুটিয়ে সেই পানি দিয়ে কুলকুচি করতে পারেন। যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মিলবে কয়েকদিনেই।