মঙ্গলবার,

১৮ জুন ২০২৪,

৫ আষাঢ় ১৪৩১

মঙ্গলবার,

১৮ জুন ২০২৪,

৫ আষাঢ় ১৪৩১

Radio Today News

দেশে দেশে বড়দিন উদযাপনের মজার যত রীতি

প্রকাশিত: ২৩:০৫, ২৪ ডিসেম্বর ২০২৩

আপডেট: ২২:২৩, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

Google News
দেশে দেশে বড়দিন উদযাপনের মজার যত রীতি

২৫ ডিসেম্বর; খ্রিষ্ট ধর্মের প্রবর্তক যিশু খ্রিষ্টের জন্মদিন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে বড়দিনের উৎসব। বড়দিন মানেই ঝলমলে ক্রিসমাস ট্রি কিংবা সান্টাক্লসের ঝোলাভর্তি উপহার। তবে এগুলো ছাড়াও দেশে দেশে বড়দিন উদযাপনের রয়েছে মজার মজার রীতি।

নরওয়ে

নরওয়েতে ক্রিসমাস ঐতিহ্য হিসেবে সেখানকার মানুষেরা বড়দিনে তাদের বাড়িতে ঝাড়ু লুকিয়ে রাখে। শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে চলে আসছে এই রীতি।  নরওয়ের মানুষদের বিশ্বাস, এই দিনে অশুভ আত্মারা আকাশে উড়তে ঝাড়ুর খোঁজ করে। সেজন্য বাড়ির বাইরে ঝাড়ু ঝুলিয়ে রাখা হয় যাতে অশুভ আত্মারা ঝাড়ু চুরি করতে বাড়ির ভিতরে প্রবেশ না করে।

অস্ট্রিয়া

ইউরোপের দেশ অস্ট্রিয়াতে এই দিনে ভীতিকর বন্য প্রাণীর পোশাক পরে শহরের সড়কে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় একজনকে। এটা প্রচলিত যে সেইন্ট নিকোলাস ছোট শিশুদের উপহার দিতেন । অন্যদিকে তার বন্ধু ক্র্যাম্পাস দুষ্টু শিশুদের ভয় দেখাতেন।  এই ঐতিহ্যকে ধরে রাখতেই ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ওই ব্যক্তি ক্রাম্পাসের পোশাক পরে শিশুদের ভয় দেখান!

স্পেন

এই দেশে বড়দিন উদযাপন করা হয় অদ্ভুত এক রীতিতে। এই দিনে একটি কাঠের একটি অংশ কম্বল দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয় এবং অন্য অংশে নাক, মুখ এবং চোখ তৈরি করা হয়। এটিকে প্রথমে খাবার খাওয়ানো হয়, এরপর বড়দিনের সন্ধ্যায় লাঠি দিয়ে পেটানো হয়। এর পিছনে বিশ্বাস কাঠ যা কিছু খেয়ে ফেলেছে, মলত্যাগের মাধ্যমে তা দূর করবে। এরপর কম্বলের নীচ থেকে উপহার নেওয়া হয়, যা বাড়ির বড়রা রাখে।

পর্তুগাল

পর্তুগালের লোকেরা বিশ্বাস করে যে ক্রিসমাসের দিনে তাদের মৃত পূর্বপুরুষরা  ক্রিসমাস উদযাপন করতে পৃথিবীতে আসেন। এই কারণেই দেশটির মানুষেরা বড়দিনে খাবার টেবিলে তাদের পূর্বপুরুষদের নাম দিয়ে প্লেট সাজায়।

ফিলিপাইন

সান ফার্নান্দো ফিলিপাইনের ক্রিসমাস ক্যাপিটাল নামেও পরিচিত। এখানে এই উৎসব এতটাই জমজমাট যে সারা বিশ্বের মানুষ এটি দেখতে আসে। বড়দিনের আগের শনিবার এখানে জায়ান্ট লাইট উৎসব উদযাপিত হয়।

ভেনেজুয়েলা

ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে বড়দিনের স্টাইল খুবই অনন্য। বড়দিনে শহরের মানুষ গির্জায় পৌঁছে তাদের নিজস্ব স্টাইলে উৎসব পালন করে। এখানকার লোকেরা চার্চ রোলার স্কেট দিয়ে স্কেটিং করতে যায়। এটি ঐতিহ্যের একটি অংশ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের