রোববার,

২২ মে ২০২২,

৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

রোববার,

২২ মে ২০২২,

৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

Radio Today News

ইপিএল

রোনালদোর ইতিহাস গড়া হ্যাটট্রিকে জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৮:০৯, ১৩ মার্চ ২০২২

রোনালদোর ইতিহাস গড়া হ্যাটট্রিকে জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

সংগৃহীত ছবি

ম্যাচে ইনজুরি কাটিয়ে যার মাঠে নামা নিয়েই ছিলো শঙ্কা, সেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোই কেড়ে নিলেন ম্যাচের সম্পূর্ণ আলো। অসাধারণ এক হ্যাটট্রিক করার পথে গড়লেন ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ফুটবল মিলিয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। সেই সাথে দলকেও এনে দিলেন গুরুত্বপূর্ণ একটি জয়।
 
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে ঘরের মাঠে টটেনহ্যাম হটস্পারকে ৩-২ গোলে পরাজিত করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এই জয়ে লিগ টেবিলের সেরা চারে ফিরলো রেড ডেভিলরা।

ম্যাচের একেবারে শুরুর দিকে রোনালদোর চমৎকার গোলে এগিয়ে যায় ইউনাইটেড। ফ্রেডের ফ্লিকে বল পেয়ে একটু জায়গা বানিয়ে ২৫ গজ দূর থেকে পাঁচবার বর্ষসেরা ফুটবলারের শটে ওপরের কোণা দিয়ে বল জালে আশ্রয় নেয়।

অষ্টাদশ মিনিটে টটেনহ্যামের বেন ডেভিস বল ইউনাইটেডের জালে পাঠালেও গোল মেলেনি, পরিষ্কার অফসাইডে ছিলেন তিনি। ২৬তম মিনিটে দিয়োগো দালোতের দৃঢ়তায় ব্যবধান ধরে রাখে স্বাগতিকরা। কর্নারে কাছ থেকে এরিক ডায়ারের হেড গোললাইন থেকে হেডেই ফেরান পর্তুগিজ ডিফেন্ডার।

৩৫তম মিনিটে আর রক্ষা হয়নি ইউনাইটেডের। সফল স্পট কিকে সমতা টানেন হ্যারি কেইন। ডি-বক্সে দেজান কুলুসেভস্কির ক্রস প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার আলেক্স তেলেসের হাতে লাগলে পেনাল্টিটি দিয়েছিলেন রেফারি।

যদিও সমতায় ফেরার স্বস্তি বেশিক্ষন স্থায়ী হয়নি টটেনহ্যামের। মাত্র তিন মিনিট পরই আবারও ইউনাইটেডকে লিড এনে দেন রোনালদো। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের পাস ধরে অফসাইডের ফাঁদ এড়িয়ে ডেডন স্যানচো বল বাড়ান ছয় গজ বক্সের মুখে। প্রথম স্পর্শে জাল খুঁজে নেন এই পর্তুগিজ অধিনায়ক। ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ফুটবল মিলিয়ে এটি ছিলো রোনালদোর ৮০৬তম গোল।

ইতিহাসে ক্যারিয়ার গোলের হিসেবে সব সেরাদের অনেক আগেই পেছনে ফেলেছেন রোনালদো। তারপরও ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ফুটবল মিলিয়ে পুরুষ ফুটবলে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড নিয়ে ছোট্ট একটা বিতর্ক ছিলই।

আনঅফিসিয়াল পরিসংখ্যানবিদদের সংগঠন ‘আরএসএসএসএফ’-এর হিসাব অনুযায়ী, সাবেক অস্ট্রিয়া ও তৎকালীন চেকোস্লোভাকিয়ার স্ট্রাইকার জোসেফ বিকানের গোল ৮০৫টি। এবার তাকেও ছাড়িয়ে গেলেন রোনালদো।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলার গতি কমে আসে কিছুটা। ৭২তম মিনিটে হ্যারি ম্যাগুইয়ারের আত্মঘাতী গোলে আবার সমতায় ফেরে টটেনহ্যাম। সফরকারীদের ডিফেন্ডার সের্হিও রেগিলনের ক্রস ক্লিয়ার করার চেষ্টায় নিজেদের জালে বল পাঠান ইউনাইটেড ডিফেন্ডার।

তিন মিনিট পর দূর থেকে চেষ্টা করেন রোনালদো। তার নিচু শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক হুগো লরিস। ইউনাইটেড শিবিরে তখন পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা, এরপরই ৮১তম মিনিটে আরেকবার রোনালদোর ঝলক। কর্নারে হেডে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড।

ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে রোনালদোর হ্যাটট্রিক হলো ৫৯টি। ক্যারিয়ার গোল সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮০৭টি।

টটেনহ্যামের বিপক্ষে দুর্দান্ত এই জয়ের মাধ্যমে প্রথম দল হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে ৪০০ ম্যাচ জয়ের মাইলফলক স্পর্শ করল ইউনাইটেড। এর মধ্যে ২৩টি টটেনহ্যামের বিপক্ষে, এটিও রেকর্ড।

রেডিওটুডে নিউজ/এসবি

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের