বুধবার,

২০ অক্টোবর ২০২১,

৫ কার্তিক ১৪২৮

পরীক্ষামূলক প্রকাশ

বুধবার,

২০ অক্টোবর ২০২১,

৫ কার্তিক ১৪২৮

Radio Today News

কিংবদন্তি বক্সার মোহাম্মদ আলির আঁকা ছবি ১ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৫৮, ৬ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ০১:৪৩, ৭ অক্টোবর ২০২১

“প্রজাপতির মতো উড়ে বেড়েই, মৌমাছির মতো দংশন করো!” কিংবদন্তি বক্সার মোহাম্মদ আলির এই বিখ্যাত উক্তিটি শোনেননি এমন ক্রীড়া অনুরাগী খুঁজে পাওয়া ভার।

এবার সর্বকালের সেরা সেই বক্সারের অনন্য এক প্রতিভার সন্ধান পেল বিশ্ববাসী। তাঁর আঁকা ছবির বিরল সংগ্রহ বিক্রি হল প্রায় ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮ কোটি ১১ লাখ টাকা।

এই বক্সারের বন্ধু রডনি হিল্টন ব্রাউনের ব্যক্তিগত সংগ্রহ থেকে ছবিগুলি নিলামে তোলা হয়। স্থানীয় সময় ৫ অক্টোবর, নিউইয়র্কের বনহ্যামসে আয়োজিত নিলাম অনুষ্ঠানে ২৬টি ছবির এই সংগ্রহ বিক্রি হয়েছে অনুমানের চেয়ে অন্তত ৩ গুন বেশি দামে।

এসব ছবির বিষয় বৈচিত্রও চমকে দেওয়ার মতো। কয়েকটি কার্টুন স্টাইল, কয়েকটিতে ফুটে উঠেছে তার ধর্মীয় ও সামাজিক ন্যায়ের ধারণা। রয়েছে বক্সিং রিংয়ে নিজেকে কল্পনা করে আঁকা ছবিও।

আয়োজনের শুরুতে বনহ্যামসের ডিরেক্টর হেলেন হল বলেন, মোহাম্মদ আলি সারা জীবনই ছবি এঁকেছেন। তাঁর বাবা ছিলেন একজন প্রফেশনাল আর্টিস। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ক্রীড়াবিদ, কর্মী এবং কবি হিসেবে এই মোহাম্মদ আলি প্রসংশিত হলেও, তার শৈল্পিক প্রতিভা খুব কম মানুষের কাছেই পৌছেছে।

নিলামে ওঠা ছবি গুলোর মধ্যে ১৯৭৮ সালে মিসিসিপিতে ঐতিহাসক মিনি সিরিজ- ফ্রিডম রোড নির্মানের সময় আঁকা ‘স্টিং লাইক অ্যা বি’ ছবিটি বিক্রি হয়েছে আয়োজনের সর্বোচ্চ মূল্য ৪ লাখ ২৫ হাজার ডলারে, যা পূর্ব অনুমানের চেয়েও ১০ গুন বেশি।

এছাড়া, ১৯৭৯ সালের লাল-সাদা ও নীল আঁচরে আঁকা, “আই লাউ ইউ আমেরিকা” ছবিটি বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার ডলারে। আর, ১৯৬৭ সালে খ্রিষ্ট ধর্মের সাথে ইসলামের তুলনা করে আকা ছবিটি বিক্রি হয়েছে ২৪ হাজার ডলারে। সব মিলিয়ে বিক্রয়মূল্য দাড়িয়েছে ৯ লাখ ৪৫ হাজার ৫শ ২৪ ডলার।

মোহাম্মদ আলীকে বলা হয় বক্সিংয়ের “দ্যা গ্রেটেস্ট অফ অল টাইম”। মোহাম্মদ আলী মানেই ভয়ঙ্কর গতি আর দেখার মত ফুটওয়ার্ক।

বাংলাদেশের সম্মানসূচক নাগরিকত্বও পেয়েছিলেন তিনি। ১৯৬৬ সালে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন মোহাম্মদ আলী। আর ২০১৬ সালে ৭৪ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন এই কিংবদন্তি বক্সার।

রেডিওটুডে নিউজ/এসএস/ইকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের