মঙ্গলবার,

১৮ মে ২০২১

করোনা ভ্যাকসিন রপ্তানি নিষিদ্ধ করল ভারত

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৫০, ৪ জানুয়ারি ২০২১

আপডেট: ১১:৫৩, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১

করোনা ভ্যাকসিন রপ্তানি নিষিদ্ধ করল ভারত

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা রপ্তানিতে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটের উপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। কয়েকমাস এ নিষেধাজ্ঞা অব্যাহত থাকবে বলেও জানানো হয়। এর ফলে দরিদ্র দেশগুলোকে করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজের জন্য আরও কয়েক মাস অপেক্ষা করতে হতে পারে।

মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে (এপি) দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়াল্লা বলেন, ‘রোববার ভারতীয় নীতিনির্ধারণী কর্তৃপক্ষ ভ্যাকসিনের জরুরি অনুমোদন দিয়েছে। কিন্তু শর্ত হলো, ঝুঁকিতে থাকা ভারতীয় জনগণের জন্য ডোজ নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য রপ্তানি করতে পারবে না সেরাম ইন্সটিটিউট। এই সিদ্ধান্তের অন্যতম কারণ অবৈধ মজুত ঠেকানো। আমরা এই মুহূর্তে শুধুমাত্র ভারতীয় সরকারের কাছে ভ্যাকসিন হস্তান্তর করতে পারব। সেরাম এই মুহূর্তে বেসরকারি বাজারেও এই ভ্যাকসিন বিক্রি করতে পারবে না।’

অপরদিকে সেরাম জানায়, যেসব দেশ তাদের টিকা নিতে আগ্রহী, তাদেরকে দেওয়ার আগে দুমাস ভারতের তাৎক্ষণিকভাবে কি পরিমাণ টিকার প্রয়োজন, তা উৎপাদনে মনোনিবেশ করতে চায় তারা।

বাংলাদেশও সেরামের ভ্যাকসিন নিয়ে আশাবাদী ছিল।ভারতে তৈরি অক্সফোর্ডের এ টিকা বাংলাদেশকে দিতেও রাজি হয় প্রতিষ্ঠানটি। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আশাও প্রকাশ করেছিলেন, জানুয়ারির মধ্যে টিকা পাওয়া যাবে।

২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে কোভ্যাক্সের ২০ কোটি থেকে ৩০ কোটি ডোজ টিকা বাংলাদেশকে দেওয়ার পরিকল্পনাও করেছিল সেরাম। অক্সেফোর্ডের তৈরি কোভিডশিল্ড টিকার ৩ কোটি ডোজ পাওয়ার জন্য ৫ নভেম্বর সেরাম ইনস্টিটিউট এবং বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের সঙ্গে চুক্তি করে বাংলাদেশ। বেক্সিমকোর মাধ্যমে প্রথমধাপের ছয় মাস, প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করেছিল সেরাম।

সম্পর্কিত বিষয়: