মঙ্গলবার,

২৮ জুন ২০২২,

১৫ আষাঢ় ১৪২৯

মঙ্গলবার,

২৮ জুন ২০২২,

১৫ আষাঢ় ১৪২৯

Radio Today News

রমজানের পর ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিয়েছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

রেডিওটুডে রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৪:২৬, ১৬ মে ২০২২

রমজানের পর ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিয়েছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

ব্যবসায়ীরা ঈদের পরে দাম বাড়ানোর সুযোগ নিয়েছে এমন মন্তব্য করে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সরকার নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ নয় স্থিতিশীল রাখতে চায়। সোমবার (১৬ মে) সচিবালয়ের গণমাধ্যম কেন্দ্রে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) আয়োজিত 'বিএসআরএফ সংলাপ'-এ অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএসআরএফ’র- সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হকের উপস্থাপনায় সংলাপ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি তপন বিশ্বাস ।

ভোজ্য তেলের ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রচুর ব্যবসায়ীকে আমরা ধরছি। সেটি ধরে ন্যায্য মূল্যে বিক্রি করছে ভোক্তা অধিকার। সেখানে অনেকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে এবং জেলেও পাঠানো হয়েছে। তবে এমন কোন পরিস্থিতি সৃস্টি করতে চাইনা যাতে বাজারে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃস্টি হয়। রমজান মাসটা সংজমের মাস। ব্যবসায়ীরা জানে ঈদের পর দাম বাড়বে তারা সেই সুযোগ নিয়েছে। তবে আমাদের ভুল হয়েছে টানা দুই মাস তেলের দামটা নির্ধারন করিনি, যদি করতাম তাহলে তারা সুযোগটা নিতে পারত না।

ব্যবসায়ীরা সরকারকে নিয়ন্ত্রণ করে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকারের বাজার নিয়ন্ত্রণ করা উচিত না। আমরা ব্যবসায়ীবান্ধব। আমরা আন্তর্জাতিক বাজারের দাম অনুযায়ী দাম ফিক্সআপ করে দেই। সে অনুযায়ী বাজারে দামটা থাকলে বাজার স্থিতিশীল থাকবে। আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে চাইতে, বাজার স্থিতিশীল রাখতে চাই।

পেঁয়াজের বিষয়ে তিনি বলেন, পেঁয়াজের আইপি বন্ধ করে কৃষি মন্ত্রণালয়। কৃষকরা যাতে দাম পায় সেটি দেখতে হবে। আমরা দেখছি কৃষকরা যাতে অন্তত ২৫ টাকা পায়। বাকি ট্রান্সপোর্টসহ অন্য খরচ মিলে ঢাকার মানুষ ৪৫ টাকায় যাতে খেতে পারে। কৃষকরা যাতে দাম পায় এবং ভোক্তারাও যাতে কম দামে পেঁয়াজ কিনতে পারে সেটি আমরা দেখছি।

মন্ত্রী বলেন, এ মূহুর্তে পেঁয়াজের দাম একটু চড়া। তবুওও দাম মানুষের নাগালের মধ্যেই আছে। পেঁয়াজের দাম যদি কৃষক ২৫ টাকা পায় তাহলে তাহলেও মোটামুটি পোষানো সম্ভব হয়। পরে সেটির সাথে ট্রান্সপোর্টসহ কিছু কস্টিং যুক্ত হয়। আমরা কিছু কিছু ভালো কাজ করতে পেরেছি। আমরা ৬০ বিলিয়ন রপ্তানি করতে পারব বলে আশা করছি। ২০২৪ সালে ৮০ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রপ্তানি করতে পারব বলে আশা করছি। ১৫০টির উপর দেশে ফার্মাসিটিক্যাল পণ্য পাঠাতে পারছি।

 

রেডিওটুডে নিউজ/এমএস

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের