সোমবার,

২৪ জুন ২০২৪,

১০ আষাঢ় ১৪৩১

সোমবার,

২৪ জুন ২০২৪,

১০ আষাঢ় ১৪৩১

Radio Today News

বাংলাদেশ থেকে যত কিলোমিটার দূরে নিম্নচাপটির অবস্থান

রেডিওটুডে রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৩:১৮, ২৪ মে ২০২৪

Google News
বাংলাদেশ থেকে যত কিলোমিটার দূরে নিম্নচাপটির অবস্থান

বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ইতোমধ্যেই নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আরও শক্তি অর্জন করে শুক্রবার রাতেই গভীর নিম্নচাপে রূপ নিতে পারে। বর্তমানে বাংলাদেশে থেকে ৬৭০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে নিম্নচাপটি।

নিম্নচাপটি আরও ঘনীভূত হয়ে শনিবার (২৫ মে) ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘রেমাল’। এখন পর্যন্ত আবহাওয়াবিদরা ধারণা করছেন, এটি বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানতে পারে। সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতির কথা চিন্তা করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে উপকূলীয় এলাকার মানুষদের মধ্যে। ইতোমধ্যে এর ক্ষয়ক্ষতি রোধে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ মে) রাতে আবহাওয়ার তিন নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে নিম্নচাপটির অবস্থান সম্পর্কে জানানো হয়। এতে বলা হয়, পূর্বমধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আজ (শুক্রবার) সন্ধ্যা ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৭১০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৭০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হতে পারে। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর মাঝারি ধরনের উত্তাল রয়েছে।

এ অবস্থায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে। এদিকে, আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান শুক্রবার (২৪ মে) জানিয়েছেন, নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড় ‘রেমালে’ রূপ নেয়ার পর বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চল দিয়ে উপকূল অতিক্রমের সম্ভাবনা রয়েছে। এ অঞ্চলে মূলত খুলনা বিভাগ পড়ে। বাতাসের শক্তি নিয়ে এটি তীব্র ঘূর্ণিঝড় (৮৯ কি.মি.) বেগে উপকূল পাড়ি দিতে পারে। তবে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেয়ার পর এর গতিপথ পরিবর্তন হতে পারে।

এমএমএইচ/রেডিওটুডে

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের