রোববার,

১৬ মে ২০২১

দৈনন্দিন ব্যবহৃত পণ্যের বিষাক্ত উপাদান করোনা টিকার শত্রু

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:০৭, ১৯ ডিসেম্বর ২০২০

আপডেট: ০৭:৪৭, ১৩ জানুয়ারি ২০২১

দৈনন্দিন ব্যবহৃত পণ্যের বিষাক্ত উপাদান করোনা টিকার শত্রু

মানবদেহে করোনাভাইরাসের টিকা কার্যকরী হলেও দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত বিভিন্ন পণ্যে থাকা বিষাক্ত উপাদান সেটি নষ্ট করে দিতে পারে বলে মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথের গবেষকরা।

তারা বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের শরীরে অল্প পরিমাণে পার্ফ্লুরোকেটানোয়িক এসিড বা পিএফএএস নামে কৃত্রিম রাসায়নিক যৌগ পাওয়া যায়। কিছু কাপড় থেকে শুরু করে পিৎজার বাক্সসহ বিভিন্ন পণ্য তৈরিতে বিষাক্ত উপাদান ব্যবহার করা হয়। একই সঙ্গে রাসায়নিক উপাদানগুলো শরীরে যে কোনো প্রতিষেধকের কার্যকারিতা নষ্ট করতে পারে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান’র খবরে বলা হয়েছে, এ উপাদানগুলো লিভারের ক্ষতি, সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হ্রাস ও ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় বলেও দাবি গবেষকদের। তারা বলছেন, টিকা কার্যকরী হলেও মানবদেহে এসব উপাদানের বিক্রিয়ার কারণে করোনা টিকার কর্মক্ষমতাকে জটিল করে তুলবে।

যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথ গবেষক দলের একজন ফিলিপ গ্রান্ডজিয়ান। তিনি বলেন, করোনার টিকা যদি অন্যান্য প্রতিষেধকের মতোই হয়, তাহলে এর কার্যকারিতাও পিএফএএস নষ্ট করে দেবে। দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত পণ্যের বিষাক্ত উপাদানগুলো করোনার টিকাকে ক্ষতিগ্রস্ত করার ঝুঁকি থাকে।

গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব শিশুর শরীরে পিএফএএস উপাদান বেশি তাদের টিটেনাস ও ডিপথেরিয়ার টিকা দেওয়ার পর শরীরে অ্যান্টিবডির ঘনত্ব কমে গেছে। এমনকি বড়দের ক্ষেত্রেও একই ফল পাওয়া গেছে। এ ছাড়া পিএফএএসের মধ্যে থাকা বিষাক্ত উপাদান পিএফবিএ মানুষের ফুসফুসে গিয়ে জমা হয় এবং করোনা আক্রান্ত রোগীদের দুর্ভোগ বাড়িয়ে দেয়।