সোমবার,

২৪ জানুয়ারি ২০২২,

১০ মাঘ ১৪২৮

সোমবার,

২৪ জানুয়ারি ২০২২,

১০ মাঘ ১৪২৮

Radio Today News

‘কাঠপরানের দ্রোহে’ আবারো রিপনচন্দ্র মল্লিক

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১৯:৪৮, ২১ ডিসেম্বর ২০২১

আপডেট: ১৯:৫৩, ২১ ডিসেম্বর ২০২১

‘কাঠপরানের দ্রোহে’ আবারো রিপনচন্দ্র মল্লিক

রিপনচন্দ্র মল্লিক

প্রতিশ্রুতিশীল ও মেধাবী গল্পকার রিপনচন্দ্র মল্লিকের পাঠকপ্রিয় গল্পগ্রন্থ ‘কাঠপরানের দ্রোহ’ বর্ধিত ও নতুন সংস্করণে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। ঢাকার বাংলাজারের হাওলাদার প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হবে বলে জানানো হয়েছে। এই বিষয়ে গল্পকার রিপনচন্দ্র মল্লিক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কাঠপরানের দ্রোহ’ গল্পগ্রন্থটির বর্ধিত ও নতুন সংস্করণ হাওলাদার প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হবে। বইটি ২০১৫ সালে দেশ পাবলিকেশন্স থেকে প্রথম প্রকাশিত হয়। এরপর ছিন্নপত্র প্রকাশনী থেকে বর্ধিত ও নতুন আঙ্গিকের সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছিল। সেই সংস্করণটি বর্তমানে বইটি বাজারে পাওয়া যায় না। তাই হাওলদার প্রকাশনীর প্রকাশক মো. মাকসুদ ভাই বইটি বাজারজাতকরণের দায়িত্ব নিয়েছেন।

নতুন ও বর্ধিত এই সংস্করণে মোট ২১ টি গল্প রয়েছে। ‘কাঠপরানের দ্রোহ’ এখন পর্যন্ত প্রকাশিত নিজের একমাত্র গল্পগ্রন্থ উল্লেখ করে রিপনচন্দ্র মল্লিক জানান, তবে বেশ কিছু গল্প লিখেছি। ইচ্ছে আছে সেগল্পগুলোকে একত্র করে আমার দ্বিতীয় গল্পগ্রন্থটি আগামী বছর ২০২৩ সালের বই মেলায় প্রকাশ করা। সেভাবেই একটু একটু করে গল্পগুলোকে পুর্নপাঠ ও সম্পাদনা করে গুছিয়ে রাখছেন বলেও জানান, এই কথাশিল্পী।

‘কাঠপরানের দ্রোহ’ গল্পগ্রন্থ প্রকাশ নিয়ে হাওলাদার প্রকাশনীর প্রকাশক মো. মাকসুদ বলেন, ‘রিপনচন্দ্র মল্লিক এই সময়ের একজন গুরুত্বপূর্ণ গল্পকার। তার গল্প যে কোন পাঠক পাঠ করলেই বুঝতে পারবেন, তিনি কোন আঙ্গিকের গল্প লেখেন। তার ‘কাঠপরানের দ্রোহ’ আমরা ক্রাউন সাইজে ২৮৮ পৃষ্ঠায় গ্রন্থকারে প্রকাশ করছি। যার দাম রাখা হয়েছে চার শত টাকা। আশা করছি, এই গ্রন্থটির গল্পগুলো সাহিত্যে অনুসন্ধানী পাঠকদের মনোযোগ আকর্ষণে সমর্থ হবে।’

রিপনচন্দ্র মল্লিকের গল্প ‘জ্যোস্নার ঘরে কান্নার স্বর’, কাঠপরানের দ্রোহ, লুকানোমায়া, মা টাকি এবং একটি ঢোঁড়া সাপের গল্প, আত্মপরিচয়, শহর জুড়ে বিষাদের বৃষ্টি, সড়কে নেভানো লুলা পেট্রোল, নীলজমিন, ফসলের ফল, রক্তে পোষা নীল পাখি, অন্ধপাখির চোখে, স্বর্ণসন্তান, রঙিলা পুতুলের গন্ধ এবং সুখনগরে। গল্পকার রিপনচন্দ্র মল্লিক এরকম প্রায় ২৫ টি সুখপাঠ্য ও সিরিয়াস ধারার গল্প লিখেছেন। নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত কিংবা দরিদ্র পরিবারের সুখ দুঃখের আখ্যানগুলো গল্পকার খুব যত্নের সাথে ফুটিয়ে তুলছেন লেখক। আবার মুক্তিযুদ্ধের উত্তরাধিকার বিনির্মাণেও রিপনচন্দ্র মল্লিক দেখিয়েছেন গল্পলেখার শক্তিমত্তার পরিচয়। শহর জুড়ে বিষাদের বৃষ্টি গল্পে তিনি এঁকেছেন শত বছরের গড়ে ওঠা বেশ্যালয়ের পতনের গল্প।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দ্বায়িত্বশীল গল্পকার রিপনচন্দ্র মল্লিক মূলত ছোটগল্পই লেখেন বেশি। পেশায় তিনি সাংবাদিক। ১৯৮৬ সালের ১ জুন গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার রামশীল ইউনিয়নের খাগবাড়ি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর পিতা রবীন্দ্রনাথ মল্লিক এবং মাতা রিনা মল্লিক। বেড়ে উঠেছেন মাদারীপুরের আলো, বাতাস আর জল মাটি গায়ে মেখে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হিসাব বিজ্ঞান শাস্ত্রে  স্নাতকোত্তর এবং এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করেছেন।

দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদিকতা করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। দি বাংলাদেশ টুডে, দৈনিক মানবজমিন, দৈনিক সংবাদ, দৈনিক মানবকন্ঠ, স্বদেশ প্রতিদিন, আমাদের অর্থনীতি, রেডিও আমার, ডেইলি ইন্ডাষ্ট্রি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ও ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন। শখ ঘুরে বেড়ানো। কাজের ভেতরে সময় পেলেই দেশের আনাচে কানাচে ঘুরে বেড়ান। ২০০৭ সালে ছোটগল্প লিখে উপমহাদেশের প্রখ্যাত সাহিত্যিক সুনীল গঙ্গোপাধ্যয়ের নামে প্রবর্তিত ‘সুনীল সাহিত্য পুরস্কার’ এবং ‘কাঠপরানের দ্রোহ’ গল্পগ্রন্থের পান্ডুলিপির জন্য পেয়েছেন দেশ পান্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৪।

রেডিওটুডে নিউজ/এসএস

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের