সোমবার,

২৭ জুন ২০২২,

১৩ আষাঢ় ১৪২৯

সোমবার,

২৭ জুন ২০২২,

১৩ আষাঢ় ১৪২৯

Radio Today News

ভিভো এক্স৮০ দিয়ে আন্তর্জাতিক মানের শর্টফিল্ম বানানো সম্ভব

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৪:৫৬, ১৩ জুন ২০২২

ভিভো এক্স৮০ দিয়ে আন্তর্জাতিক মানের শর্টফিল্ম বানানো সম্ভব

হাওয়া ঘর (নাটক), আয়নাবাজি, মুন্সিগিরি, রিক্সাগার্ল (ফিচার ফিল্ম), একটি ফোন করা যাবে (নাটক) বাংলা বিনোদন অঙ্গনে দাগ কেটে গেছে এই নাটক সিনেমাগুলো। গতানুগতিক ধারা থেকে ভিন্ন এসব নির্মাণের কারিগর অমিতাভ রেজা চৌধুরী। সর্বশেষ 'মুন্সিগিরি' সিনেমা দিয়ে ঝড় তুলেছিলেন সারাদেশে। আয়নাবাজি সিনেমা নিয়ে হাজির হয়েছিলেন কান ফেস্টিভ্যালে।

প্রখ্যাত এই নির্মাতা ঢাকা মেট্রো, বন্ধনের মতো টিভি ওয়েব সিরিজও তৈরি করেছেন।

সম্প্রতি, অমিতাভ রেজা চৌধুরীকে স্যোশাল মিডিয়ায় বহুজাতিক স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো একটি ক্যাম্পেইনে কথা বলতে দেখা গেছে। সেখানে এক্স৮০ ফাইভজি নামে একটি স্মার্টফোন নিয়ে কথা বলেন তিনি।

ফিল্মমেকিং নিয়ে অমিতাভ বলেন, ‘একজন ফিল্মমেকার কখনো সত্যকে ধরতে পারে না। কিন্তু সত্যের অনুসন্ধান করতে পারে। আর এভাবেই সত্যের অনুসন্ধান করতে করতেই আমার চলচ্চিত্রে আসা। আমার ব্যক্তিগতভাবে মনে হয়, আমার সবচেয়ে বড় শিক্ষক এখন নতুন জেনারেশন। তাদেরকে আমি শুধু একটা কথাই বলতে চাই, আপনার ঘরেই, আপনার পাশেই একটি গল্প আছে।’ 

প্রযুক্তির ব্যবহার করে কনটেন্ট নির্মাণ এখন আরো অনেক সহজ হয়ে গেছে বলে মনে করেন এই নির্মাতা। শর্টফিল্মের মতো কনটেন্ট নির্মাণে তরুণদের স্মার্টফোনের ব্যবহার করতে উৎসাহিত করেন অমিতাভ। 

অমিতাভ রেজা বলেন, ‘আমার কাছে ফোন এখন শুধু এসেনশিয়াল মিনস অব হিউম্যান কমিউনিকেশন না। ফোনের মাধ্যমে আমি আমার গল্প বলি। ফোনের মাধ্যমে আমার চোখ তৈরি হয়। আর এই চোখের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে লেন্স। আমার কাছে এইজন্যেই সবচেয়ে এক্সাটিং পার্ট হচ্ছে কার্ল জেইস আর ভিভো কোলাবোরেশন। কার্ল জেইস ভিভো কোলাবোরেট করে যেই প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে, যেই ফোন আমাদের হাতে দিয়েছে, সেই ফোনে আপনি ইচ্ছা করলেই ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ডের গল্প, শর্ট ফিল্মস বানাতে পারেন। এবং সারা পৃথিবীর যেকোনো ফেস্টিবালে আপনি হাজির হতে পারেন আপনি আপনার গল্প নিয়ে। এরচেয়ে একসাইটিং এরচেয়ে শক্তিশালী আর কি ঘটনা ঘটতে পারে, যার মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র একটি ডিভাইসের মাধ্যমে আপনি সারাবিশে^ সামনে আপনি আপনার অস্তিত¦ হাজির করবেন। এভাবে প্রযুক্তির ব্যবহার করে নতুন জেনারেশন গল্প বলবে এদেশের মানুষের মাটির।

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের