রোববার,

২৭ নভেম্বর ২০২২,

১৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

রোববার,

২৭ নভেম্বর ২০২২,

১৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

Radio Today News

চুক্তি পত্রে সই করিয়ে তবেই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বর

রেডিও টুডে রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১২:৫৮, ১৪ নভেম্বর ২০২২

চুক্তি পত্রে সই করিয়ে তবেই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বর

সংগৃহীত ছবি

সমাজে একটি কথা প্রচলিত আছে, বিয়ের পর পুরুষদের নাকি ইচ্ছা বা অনিচ্ছা বলে কিছু থাকে না। নতুন বিয়ে করে স্ত্রীর হাতেই নাকি তার সমস্ত ইচ্ছা অনিচ্ছা নির্ভর করে। কখন বাড়িতে ফিরবেন, কখন বের হবেন, কখন কার সঙ্গে কথা বলবেন সব কিছুর মূল চাবিকাঠি যেন স্ত্রীর হাতেই রয়ে যায়। তাই সবচেয়ে বেশি বঞ্চিত হয় বরের বন্ধুরা।

উপায়ান্তর না দেখে তাই বর বিয়ের পরেও স্বামীকে প্রতিদিন রাত ৯ টা পর্যন্ত যেন আড্ডা মারতে দেয়া হয় এবং সেই সময় পর্যন্ত যেন তাকে কোনোভাবেই ফোনে বিরক্ত না করা হয়, এমনটাই উল্লেখ করে চুক্তিপত্রে রীতিমত সই নিয়ে তবেই বিয়ের পিড়িতে বসলেন বর।

ভবিষ্যতে যেন বরের বন্ধুরা বঞ্চিত না হয় সে বিষয়টি মাথায় রেখেই বরের বন্ধুরা এই পরিকল্পনা করেছেন। কিন্তু বর বাস্তবে যুক্তিপত্র তৈরি করে সত্যি সত্যিই বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন তা কিন্তু বন্ধুদের কেউই ভাবতে পারিনি।

কোন কোন জায়গায় বিয়েতে বন্ধুদের নানা রকম উদ্ভট উপহার দেয়ার রেওয়াজ রয়েছে। এক্ষেত্রেও তাই ঘটলো। ৫ নভেম্বর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন এই দম্পতি। বিয়েতে বসার আগেই বন্ধুরা ওই চুক্তিপত্রটি বউয়ের হাতে তুলে দেন। এবং তার বন্ধুদের শর্ত মেনে নিয়েই চুক্তিপত্রে সই করেন বউ। এমন ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট হতেই  রীতিমতো ভাইরাল  হয়ে যায় ভিডিওটি।

বিয়ের এই আয়োজনে দেখা গেছে, ৫০ টাকার স্ট্যাম্প কাগজে সই করার আগে উপস্থিত সকল অতিথিদের সামনে চুক্তিপত্রটি পড়ে শোনানো হয়। শুধু তাই নয়, কাজে কোন ফাঁক রাখতে চান নি বর। পরে যদি কথার এদিক-ওদিক হয় সেই চিন্তা মাথায় রেখে রীতিমতো সাক্ষ্য-প্রমাণ রেখে চুক্তিপত্রে সই করতে হয়েছে বউ অর্চনাকে। এবং সই সামুদের পরে নাকি বিয়েতে বসেছেন কেরালানিবাসি রঘু।

এস আর

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের