রোববার,

২৭ নভেম্বর ২০২২,

১৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

রোববার,

২৭ নভেম্বর ২০২২,

১৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

Radio Today News

কাতার বিশ্বকাপ-২০২২

প্রথমবার আয়োজনে ও অংশগ্রহণে চমক দেখাতে প্রস্তুত `কাতার`

শাহরিয়ার বাবু

প্রকাশিত: ১২:৪৬, ২ নভেম্বর ২০২২

প্রথমবার আয়োজনে ও অংশগ্রহণে চমক দেখাতে প্রস্তুত `কাতার`

আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপে কাতার স্কোয়াড

সংখ্যার হিসেবে গুণে গুণে আর মাত্র ১৮ দিন পর মাঠে গড়াবে দীর্ঘ চার বছর পর আসা ফুটবল বিশ্বকাপ। 'দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ' খ্যাত বিশ্বকাপের এবারের আসরটি মূলত ইতিহাসের ২২তম বিশ্বকাপ। আগামী ২০ নভেম্বর থেকে কাতারের মাঠে গড়াচ্ছে বিশ্ব ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের এই আসর। 

কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে প্রতিনিয়তই নানান আয়োজনে মাতছে ফুটবল বিশ্ব। ফুটবলের সবচেয়ে বড় এই ফেস্টিভাল উপলক্ষে আমরাও নিয়ে আসছি বিশেষ কিছু। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হতে প্রতিটি দলই গড়ছে নিজেদের শক্তিশালী স্কোয়াড। আজকের পর্বে আজ আমরা জানবো ২২তম বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার সম্পর্কে। যারা কি-না প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করছে দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ-খ্যাত ফুটবল বিশ্বকাপে। 

প্রথম বারের মতো আয়োজন করতে যাওয়া বিশ্বকাপ ঘিরে কাতার যেনো ইতিহাস গড়তেই যাচ্ছে এবার। আয়োজনে কিংবা হাইপে দুইদিক থেকেই কোনো কমতি রাখতে নারাজ স্বাগতিক কাতার। শক্তিশালী ফুটবল কাঠামো না থাকার পরেও, অর্থের বদৌলতে রাতারাতি কাতার যেনো পরিণত হয়েছে এক ফুটবলের পুণ্য ভূমিতে। বিগত বছরগুলোর বিশ্বকাপ আয়োজনে সর্বোচ্চ ২২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যায় করছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার।

মাত্র ১২ বছরের ব্যবধানে শুন্য থেকে কাতারকে পরিণত করেছে ফুটবল পরাক্রমশালী দল হিসেবে। তবে শুধু আয়োজনেই নয় বরং প্রথমবারের মতো বিশ্বআসরে মাঠের লড়াইয়েও নামবে কাতার। স্বাগতিক হওয়ার সুবাদে সবার আগে বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। আর তাই আয়োজনের পাশাপাশি মাঠের পারফরম্যান্সেও দারুণ কিছু করে দেখাতে মুখিয়ে কাতার।

ফুটবল ব্যাকগ্রাউন্ড ততটা শক্তিশালী না হলেও কাতারের বর্তমান দলটি তাদের শেষ এক যুগের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার ফসল।বিশ্বকাপ আয়োজনের স্বীকৃতি পাওয়ার পরই সেই ২০১০ সালে দল গড়াতে মনোযোগ দেয় কাতার। তেমন কম্পিটিটিভ না হলেও ১২ বছরের বিচারে সমীহ জাগানিয়া একটা দলই তৈরী করতে পেরেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।

ডাগআউট থেকে স্প্যানিশ ফেলিক্স স্যানচেজ নেতৃত্ব দিবেন প্রথমবার বিশ্বআসরের অভিজ্ঞতা নিতে যাওয়া কাতারকে। যিনি ২০১৯ এশিয়ান কাপের স্বীকৃতি এনে দিয়েছিলেন দলকে। দলীয় শক্তিতে নির্ভরশীল কাতারের সবচেয়ে বড় তারকা আলমুজ আলী। বর্তমানে কাতারি ক্লাব আল দুহাইলির হয়ে খেলছেন ২৬ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। এএফসি চ্যাম্পিয়নস লীগে এরইমধ্যে ৫ ম্যাচে ২ গোল করা আলমুজের উপর মূল ফোকাস থাকবে বিশ্বকাপ মিশনে। এছাড়া হাসান হাইদুস, আকরাম আল আফিফরাও প্রস্তুত টুর্নামেন্টে নিজেদের মেলে ধরতে।

৫-৩-২ ফর্মেশনে খেলা কাতারের শক্তির জায়গা তাদের অভিজ্ঞতা। জাতীয় দলের হয়ে ১০০ এর অধিক ম্যাচে মাঠে নামা তিনজন আছেন এই দলে। তারা হচ্ছেন হাসান,কারিম এবং আব্দুল করিম। স্কোয়াডের বাকিরা খেলেন কাতার স্টার লীগে। যার দরুণ সবার মাঝে আছে চমৎকার বোঝাপড়া। যা বিশ্বকাপে ভালো করার অনুপ্রেরণা যোগাবে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের ৪২ নাম্বারে থাকা কাতারকে।

র‍্যাংকিংয়ে ১১৩ থেকে ৪২ এ আসার যাত্রাতে দলটি অর্জন করেছে এশিয়ান ট্রফি। খেলেছে কনকাকাফ গোল্ড কাপের সেমি ফাইনালে। দারুণ ব্যাপার হলো টুর্নামেন্ট দুটিতেই গোল্ডেন বুট জিতেছেন আলমুজ আলী। এছাড়া কাতারের গোলপোস্টে অতন্দ্র প্রহরী হয়ে থাকবেন সাদ আল শিবের মতো একজন অভিজ্ঞ গোলরক্ষক। 

সব মিলিয়ে তাই বলা যায়, নামে সাদামাটা হলেও আদতে বেশ দারুণ একটি দল গড়েছে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার। টুর্নামেন্টে কাতারের গ্রুপে আছে নেদারল্যান্ডস, সেনেগাল, ইকুয়েডর। তবে সবকিছুর বাস্তব প্রয়োগ দেখতে কাতারের ভক্তরা মুখিয়ে আছে মাঠের খেলা দেখতে। যেখানে আগামী ২০ নভেম্বর ইকুয়েডরের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে কাতার। অপেক্ষা তাই মাত্র ১৮ দিনের, অপেক্ষা ২২তম বিশ্বকাপের পর্দা উঠার।

রেডিওটুডে নিউজ/এসবি

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের