রোববার,

০৫ ডিসেম্বর ২০২১,

২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৮

রোববার,

০৫ ডিসেম্বর ২০২১,

২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৮

Radio Today News

বাংলাদেশের প্রান্ত হতে সালাম জানাই হে রাসূল (সা:)

আবিদ আজম

প্রকাশিত: ১৬:৪২, ২০ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ২৩:০১, ২০ অক্টোবর ২০২১

বাংলাদেশের প্রান্ত হতে সালাম জানাই হে রাসূল (সা:)

ফাইল ছবি

মানবতার মুক্তির দিশারী মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:); যাকে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সমগ্র বিশ্ববাসীর জন্য রহমত হিসেবে প্রেরণ করেছেন, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন। পৃথিবীর সর্বকালের শ্রেষ্ঠতম এই মহামানব ইসলামের শেষ নবী; যার উপর বিশ্ব জাহানের প্রতিপালক নাযিল করেছেন, শেষ আসমানী কিতাব পবিত্র আল কুরআন। আল্লাহর পক্ষ থেকে নবুওয়াত প্রাপ্তির পর দয়াল নবি নিজের অক্লান্ত সাধনা-ত্যাগ-তিতিক্ষা আর সংগ্রামে মাত্র ২৩ বছরে ইসলামের যে আলো জ্বালিয়েছিলেন, সে আলোয় আলোকিত বিশ্ব জাহান। প্রথমে হেরা গুহা থেকে ছড়িয়ে পড়েছিলো সেই ঐশি আলোর প্রেমময় বিচ্ছুরণ।

মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে সমগ্র মানবজাতির উদ্দেশ্যে বলেছেন, তোমাদের জন্য রাসূল স. এর জীবনেই রয়েছে সবোর্ত্তম আদর্শ। আর মহানবীর উদ্দেশ্যে আল্লাহ ইরশাদ করে বলেন, নিশ্চয়ই আপনি মহান চরিত্রের অধিকারী। তাই মহানবী (সা:) এর জীবনাদর্শ এবং নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণের মাধ্যমে দুনিয়াতে শান্তি এবং আখিরাতে চির মুক্তি মিলবে বলে জানিয়েছেন, কুরআন মজলিস বাংলাদেশের সভাপতি মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ এমদাদ উল্লাহ।
   
ইসলাম ধর্মমতে, মহানবী (সা:) এর শাফায়াত বা সুপারিশ ছাড়া কোন মানুষের রোজ হাশরে মিলবে না নাযাত। সেরা অনুকরণীয় ও অনুস্বরণীয় হিসেবে মুসলিম জাতির প্রাণের অধিক প্রিয় ব্যক্তিত্ব হযরত মোহাম্মদ (সা:); যার কোন অবয়ব বা আকৃতি পৃথিবীতে অবশিষ্ট নাই।

মহানবীর মুখের বাণী হাদীস শরীফ হিসেবে পরিচিত। মানবজাতির জীবন চলার পথের সব রকমের পথনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, পবিত্র কুরআন ও হাদীসে। আর ইসলামকে ঘোষণা করা হয়েছে পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান ও আল্লাহর কাছে একমাত্র গ্রহণযোগ্য জীবনব্যবস্থা হিসেবে। তবু ভিন্নধর্মের মর্যাদা ও অধিকারের প্রতি ছিলো দ্বীনের নবির সমান নির্দেশনা। বলে গেছেন, ‘যদি কোন মুসলমান অমুসলিম নাগরিকের উপর নিপীড়ন চালায়, তার অধিকার খর্ব করে, তার কোন বস্তু জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয়, তাহলে তিনি কেয়ামতের কঠিন দিনে আল্লাহর আদালতে তার বিরুদ্ধে অমুসলিম নাগরিকের পক্ষাবলম্বন করবেন’।

জাহেলিয়াতের অন্ধকার হতে মুক্তির মহাআলোকবর্তিকা, আল্লাহর পেয়ারা হাবীব মুহাম্মদ মোস্তফা (সা:) ১২ ই রবিউল আউয়াল জন্মগ্রহণ করেন; ৬৩ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন, একই তারিখে। তবু মদীনায় তাঁর রওজা মোবারকের উদ্দেশ্যে প্রতি মূহুর্তে পাঠ করা হচ্ছে, দূরুদ শরীফ। যা জারি থাকবে, পৃথিবী ধ্বংস অবধি।

বাংলাদেশের প্রান্ত হতে সালাম জানাই হে রাসূল...

রেডিওটুডে নিউজ/জেএফ/ইকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক সবার কাছের